অস্ট্রেলিয়া বনাম শ্রীলঙ্কা, টি-টোয়েন্টি  ২য় ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় গ্যাবা, ব্রিসবেন এ।টস এ জিতে ব্যাট করতে নামে শ্রীলঙ্কা।ম্যাচ এর শুরু ভালো হলেও ২য় ওভার এ রান আউট হয় কুসাল মেন্ডিস।৪ বল খেলে ১ রান করে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।ম্যাচ এর শুরুতে এতো বড় একটা ধাক্কা যেন সামলে নিতে পারেনি শ্রীলঙ্কা।পুরো ম্যাচ এ তার প্রমাণ আমরা পাই।ম্যাচ এর শুরুতে সেই ধাক্কা কাটিয়ে ওঠে ভালোই খেলছিলেন তারা।কিন্তু ৫ম ওভার এ অ্যাশটন আগর এর বলে
অবিশকা ফার্নান্দো ১৬ বলে খেলে ১৭ রান করে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।এর পর একের পর এক কেও মাঠে তাদের পারফমেন্স ধরে রাখতে পারেনি।অস্ট্রেলিয়ার দুদান্ত বলার দের কাছে শ্রীলঙ্কা ব্যাটস্ম্যানরা যেন মাঠে তাদের অবস্থান ধরে রাখতে পারেনি।৪ ওভার বল করে বিলি স্টানলাকে প্যাট কামিন্স অ্যাশটন আগর আদম জামপা যথাক্রমে ২৩,২৯,২৭ অ ২০ রান এ ২টি করে উইকেট নেই তারা। তাদের বলের গতির কাছে শ্রীলঙ্কানরা মাঠে তাদের পারফমেন্স ধরে রাখতে পারেনি। হতাসা নিয়েই তাদের মাঠ ছাড়তে হয়।ফলে১৯ ওভার এ ১০ উইকেট এ ১১৭ রান করে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের কে।

১১৮ রান এর টার্গেট এ ব্যাট করতে নামে অস্ট্রেলিয়া।শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ার উপর চাপ অনেকটা বেড়ে যাই। ১ম ওভার এ ০ রান করে মালিংগার বলে  আউট হয় হারুন ফিঞ্চ। ১ম ওভার এ ০ রান করে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। এ যেন প্রথমেই অস্ট্রেলিয়ার উপর অনেক চাপ বেড়ে যাই। কিন্তু সেই চাপ সামলে উঠে ডেভিড ওনার এবং স্টিভেন স্মিথ।৪১ বলে ৬০ রান এর দুদান্ত পারফমেন্স করেন ডেভিড। ৩৬ বলের ৫৩ রান করেন স্টিভেন স্মিথ।তারা দুইজন ম্যাচ এর প্রথমের হতাসা কাটিয়ে দুদান্ত পারফমেন্স করেন তারা। তারা ম্যাচ সবার আশা ফিরিয়ে আনে।তাদের পারফমেন্স এ অস্ট্রেলিয়া জয় এর আসা ফিরে পাই।পুরো ম্যাচ এ তারা উদ্দ্যাম পারফমেন্স নিয়ে খেলে । তাদের পারফমেন্স ছিল দেখার মত।যা সবাই কে চমকে দেই এবং অস্ট্রেলিয়ার জয় এনে দেই।

ডেভিড ওয়ার্নার, ম্যান অফ দ্য ম্যাচ: ক্রেডিট আমাদের বোলারদের কাছে যায়, তাদের 117-তে সীমাবদ্ধ রাখা দুর্দান্ত ছিল। এখানে আরও বাউন্স এবং বহন ছিল এবং শর্তগুলি যখন আর্দ্র থাকে তখন এটি কিছুটা দুলতে থাকে। ছেলেরা তাদের দৈর্ঘ্যের ডানদিকে আঘাত করেছিল এবং আমরা কেবল তাদের পিছনের পাতে ঠেলে দেওয়ার চেষ্টা করেছি এবং ক্রস-ব্যাটেড শট খেলতে বাধ্য করেছিলাম। অনেক পরিশ্রম। বল দেখছি আর বল মারছে। আমি জালে বল ভালোভাবে মারছি। তবে দিনের শেষে, আপনি নেটগুলিতে যা করেন না, এটি মাঝখানে আপনি কী করেন তা গণনা করে। এটি দুর্দান্ত (স্মিথের সাথে ব্যাটিং)। আমি যা জানি তা হচ্ছে আমরা বড় সীমানা নিয়ে প্রচুর দৌড়াতে যাচ্ছি। আমরা চেষ্টা করি এবং সুন্দর এবং স্থির থাকি এবং তিনি খেলাটি সহজ দেখায়, তিনি (স্মিথ) একজন বিশ্বমানের খেলোয়াড় এবং আমি তাঁর সাথে ব্যাটিং উপভোগ করি। লাসিথ মালিঙ্গা |

শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক: এটি একটি শক্তিশালী দিক এবং আমি মনে করি এই ধরণের ব্যাটিং লাইন আপের সাথে আমাদের স্কোর যথেষ্ট ছিল না। আমাদের প্রত্যাশিত স্কোর আমরা পাইনি এবং ব্যাটসম্যানদের আরও দায়িত্বশীল হতে হবে। শট নির্বাচনটি দুর্দান্ত ছিল না এবং আমরা মাঝের ওভারগুলিতে কোনও অংশীদারিত্ব পাইনি। একমাত্র ইতিবাচক আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতি হওয়ায় আমরাও একই পরিস্থিতিতে খেলব এবং আমাদের এ জাতীয় পরিস্থিতিতে নিজেদের পরীক্ষা করতে হবে। আমরা পরবর্তী খেলায় জয়ী হতে চাই কারণ এটি একটি তরুণ দিক এবং এটি তাদের আত্মবিশ্বাস দেবে।

আজ এই পর্যন্ত । পরর্বতী ম্যাচ এর জন্য আমাদের সাথে থাকুন। ততক্ষন এ বিদায়। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Your Rating:05

Thanks for submitting your comment!