বাংলাদেশ এিৃ-সিরিজ এর ৫ম ম্যাচ এ জিম্বাবুয়ে বনাম আফগানিস্তান ম্যাচ এ জিম্বাবুয়ের ৭ উইকেট এ জয়। টস এ জিতে ব্যাট করতে নামে আফগানিস্তান। শুরুতে তাদের পারফমেন্স ছিলো দেখার মত।  ৯.৩ ওভার এ যোথ ভাবে তাদের রান ছিলো ৮৩ রান। কিন্তু  টিনোটেন্ডা মুটম্বোডজি বলে ৩১ রান করে মাঠ ছাড়তে হয় হযরতউল্লাহ জাজাই রহ কে।তার পর মাঠে আর কেও তাদের পারফমেন্স দেখাতে পারেনি। কিন্তু তবুও অপেনার ব্যাটসম্যান রহমানউল্লাহ গুরবাজ তার পারফমেন্স ধরে রাখে। ৪৭ বলে ৬১ রান এর একটি দুদান্ত পারফমেন্স ম্যাচ কে উপহার দেই। কিন্তু তবুও পরাজয় মেনে নিতে হয় আফগানিস্তান কে। কারন হিসাবে বলা যেতে পারে রহমানউল্লাহ ছাড়া আর কেও ম্যাচ এ তাদের পারফমেন্স ধরে রাখতে পারেনি। ফলে ১৫৫ রান এ মাঠ ছাড়তে হয় আফগানিস্তান দল কে। এটা বলা যাই জয় আফগানিস্তান এর জন্য ছিলো না। সম্পূর্ণ ম্যাচ আফগানিস্তান দল যেন ছন্ন্য ছাড়া ভালে খেলেছে। ক্রিস এমপোফুর ৪ ওভার এ ৪টি উইকেট যেন তাদের থেকে জয় আর আশা কেড়ে নেই। সম্পূর্ণ ম্যাচ যেন আফগানিস্তান এর বিপক্ষে ছিলো। পরাজয় তাদের কে যেন ঘিরে রেখেছিলো ।আর তাই যেন পরাজয় তাদের মেনে নিতে হল।

১৫৫ রান এর টার্গেট এ ব্যাট করতে নেমে জিম্বাবুয়ে শুরু থেকেই তাদের দুদান্ত পারফমেন্স দেখাই। ৪,৬ ওভার এ ১৯ করে মাঠ ছাড়তে হয় ব্রেন্ডন টেলর কে। কিন্তু তবুও জিম্বাবুয়ে তদের ভরসা হারাই নি। হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ৭১ রান এর একটই দুদান্ত পারফমেন্স দেখাই ম্যাচ এ। তার এর দুদান্ত পারফমেন্স জিম্বাবুয়ে কে জয় এর আশা দেখাই। তার সেই উদ্দ্যম পারফমেন্স ধরে রাখি বাকিরা। ফলে ৩ উইকেট এ ১৯,৩ ওভের তারা ৭ উইকেট এ জয় লাভ করে। পুরো ম্যাচ তারা যেন জয় এর জন্য খেলে। জয় যেন তাদের ভাগ্যে আগে থেকেই ছিলো। মুজিব উর রহমান এর ৪ ওভার এ ২ উইকেট যেন থামিয়ে রাখতে পারেনি জিম্বাবুয়ে কে। জয় তারা ছিনিয়ে এনেছে।

মাসাকাদজা, জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক বলেন: এমনটা শেষ করার মতো দুর্দান্ত অনুভূতি। সবসময় জানত ছেলেদের মধ্যে তাদের অভিনয় ছিল। এভাবে পাঠানো বন্ধ করে দেওয়া ভাল। ছেলেদের সাথে আজ দুর্দান্ত ছিল। নক শেষে আমি ইচ্ছে করেছিলাম যে আমি দুটি খেলা আগে থামিয়েছি। চেঞ্জিং রুমে আমরা এমন কিছু কথা বলি। আমরা তাদের টি-টোয়েন্টিতে পরাজিত করি নি। আমার শেষ এটিকে টানতে বিশেষ ছিল। ছেলেরা পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে প্রচুর লড়াই দেখিয়েছে।

রশিদ খান আফগানিস্তানের অধিনায়ক বলেন: আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। খুব ভাল শুরু হয়েছিল তবে ভাল শেষ হয়নি। এটি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের একটি অংশ। একটি ভাল খেলা ছিল, ইতিবাচক গ্রহণ করবো সবাই এবং ভুল পুনরাবৃত্তি না করার চেষ্টা করবোমঙ্গলবার ফাইনালের আগে ড্রেস

রিহার্সালে বাংলাদেশ আগামীকাল আফগানিস্তানের সাথে লড়াই করবে। ততক্ষণে ভালো থাকবেন।ধন্যবাদ । বিদায়।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Your Rating:05

Thanks for submitting your comment!