মাঠে খেলার আগেই কথাযুদ্ধে নেমেছিল আফগানরা। নাবি, গুলবাদিনরা খেলার আগেই বাংলাদেশকে হুমকি দিয়ে রেখেছিল। নাবি বলেছিলেন ম্যাচে তারাই ফেভারিট। এর সাথে সুর মিলেয়ে আফগান অধিনায়ক বলছিলেন বাংলাদেশকে ডুবাতে চান তারা। কিন্তু মাঠের পারফরম্যান্সে তাদের কথার ছিটেফোঁটাও দেখা গেল না।

ম্যাচের আগের সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এসব বিতর্কিত কথা বলে সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছিল আফগানিস্তানের ক্রিকেটাররা। আফগানিস্থানের অলরাউন্ডার নাবি বলেছিলেন বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে তারাই ফেভারিট। আর আফগান অধিনায়ক বলেছিলেন, তারা (আফগানিস্থান) তো ডুবেছেনই, এবার বাংলাদেশকে নিয়ে ডুবতে চান তারা।

কিন্তু তাদের কথা শুধু কথার মধ্যেই রয়ে গেল। ম্যাচে এর বাস্তব প্রতিফলন ঘটাতে পারেনি তারা। বাংলাদেশ একতরফা ভাবে ম্যাচ নিজেদের করে নিয়েছে। অবশ্য আফগানদের মত বাংলাদেশ কথার যুদ্ধে নামেনি। তারা আসল খেলার দিকে মনযোগ দিয়েই ম্যাচ জিতে নিয়েছে।

গতকাল বিশ্বকাপের ৩১ তম ম্যাচে রোজ বল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টসে জিতে প্রথমে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানায় আফগানিস্থান। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালই করলেও আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে মাত্র ১৬ রানে আউট হয়ে যান লিটন দাশ।

একপ্রান্ত আগলে সাকিবকে নিয়ে বড় জুটির দিকে যাচ্ছিলেন তামিম ইকবাল। কিন্তু ৫৩ বলে ৩৬ রান করে মোহাম্মদ নাবির বলে সরাসরি আউট হয়ে যান তিনি। এরপর সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম  মিলে জুটি গড়ে দলকে বড় স্কোরের দিকে নিয়ে যান। তবে মুজিব উর রহমানের বলে এলবিডব্লিওয়ের শিকার হয়ে ৬৯ বলে ৫১ বলে করে আউট হন সাকিব।

এরপর সৌম্য সরকার মাত্র ৩ রানে আউট হয়ে গেলে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। সৌম্যের পর মাহমুদুল্লাহকে সাথে নিয়ে দলকে চাপমুক্ত করেন মুশফিক। মাহমুদউল্লাহ ২৭ রান করে আউট হওয়ার পর মোসাদ্দেককে সাথে নিয়ে রানের চাকা গতিশীল করেন মুশফিক।

মুশফিক ৮৭ বলে ৮৩ রান করে আউট হন। মোসাদ্দেক ২৪ বলে ৩৫ রান করেন। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে বাংলাদেশ ৭ উইকেটে ২৬২ রান করতে সক্ষম হয়। আফগানিস্তানের মুজিব ৩ উইকেট ও গুলবাদিন ২ উইকেট লাভ করেন।

২৬৩ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালই করছিল আফগানিস্তান। তাদের প্রথম জুটি ভাঙ্গেন সাকিব আল হাসান। রহমত শাহকে ২৪ রানে ফেরান এই অলরাউন্ডার। এরপর অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব প্রতিরোধ করার চেষ্টা করলেও সাকিবের আক্রমনে ব্যর্থ হন। গুলবাদিন ৭৫ বলে ৪৭ রান করে আউট হন।

দুই উইকেট হারানোর পর আফগানিস্থানের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা ক্রিজে বেশিক্ষন থাকতে পারেননি। সামিউল্লাহ শেনওয়ারি ৫১ বলে ৪৯ রানে অপরাজিত থাকেন। নিজেদের ফেভারিট দাবি করা আফগান ক্রিকেটার নাবি মাত্র ২ রান করে আউট হন।

বাংলাদেশ ৪৭ ওভারেই আগগানিস্তানের সব কয়টি উইকেট তুলে নেয়। ম্যাচের ৩ ওভার বাকি থাকতে ২০০ রানে থামে আফগানদের ইনিংস। আফগানিস্তানের ইনিংসে একাই ধস নামান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তিনি শিকার করেন ৫ উইকেট। মুস্তাফিজুর রহমান লাভ করেন ২ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ-

বাংলাদেশঃ ২৬২/৭ (৫০ ওভার) মুশফিকুর ৮৩, সাকিব ৫১, তামিম ৩৬

মুজিব ৩/৩৯

আফগানিস্থানঃ ২০০ (৪৭ ওভার) সামিউল্লাহ ৪৯, গুলবাদিন ৪৭

সাকিব ৫/২৯

ফলঃ বাংলাদেশ ৬২ রানে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচঃ সাকিব আল হাসান (৫১, ৫/২৯)

Mustafa Shakir

আরও পড়ুনঃ কাল সাউদাম্পটনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ
এবার বাংলাদেশকে হুমকি দিলেন আফগান অধিনায়ক!
বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজেদের ফেভারিট বলছেন নবি!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Your Rating:05

Thanks for submitting your comment!