বিশ্বকাপের ১৪ তম ম্যাচে গতকাল মুখোমুখি হয়েছিল ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কুহলি। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ভারত ৫ উইকেটে ৩৫২ রান করে।

৩৫৩ রানের বড় টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ৩১৬ রান করে। ভারত ৩৬ রানে জয় লাভ করে। ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছেন ভারতের শিখর ধাওয়ান।

লন্ডনের ওভালে গতবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া (২০১৫) টস করতে নামে এর আগেরবারের চ্যম্পিয়ন (২০১১) ভারতের সাথে। টসে জিতে ভারতের অধিনায়কের নেওয়া ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত ভালোভাবেই দেয় ব্যাটসম্যানরা। অজি বোলারদের শাসন করে ৩৫২ রান করে তারা।

শিখর ধাওয়ান একাই তুলে নেন ১১৭ রান। ১০৯ বল খেলে ১৬টি চারের মারে ১১৭ রান করেন এই ওপেনার। রুহিত শর্মা হাফসেঞ্চুরি করে আউট হলেও ধাওয়ান ব্যাটিং করে যান। রুহিতের সাথে ধাওয়ানের পার্টনারশিপ হয় ১২৭ রানের। রুহিত ব্যাক্তিগত ৫৭ রান করে আউট হন। ৭০ বলে ৫৭ রান করে কোল্টার নাইলের বলে আউট হন তিনি।

রুহিতের বিদায়ের পর ক্রিজে আসেন ভারতের অধিনায়ক। শিখর ধাওয়ানকে সাথে নিয়ে ৯৩ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তুলেন তাঁরা। ধাওয়ান বিদায় নেওয়ার পর উইকেটে আসেন পান্ডিয়া। পান্ডিয়ার সাথে আবার ৮১ রানের পার্টনারশিপ হয়।

পান্ডিয়া মাত্র ২৭ বলে ৪৮ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। ৩ ছয় আর ৪ বাউন্ডারির মাধ্যমে তিনি ৪৮ রান করেন। অর্ধ শতক থেকে মাত্র দুই রান কম করে কমিন্সের বলে আউট হয়ে যান তিনি।

এর পর উইকেটে আসেন সাবেক অধিনায়ক এম এস ধোনি। মাত্র ১৪ বলে ২৭ রান করে আউট হন তিনি। এর পর রাহুল এসে ৩ বলে ১১ রানে অপরাজিত থাকেন। প্রথম ইনিংসের শেষ বল মারতে গিয়ে কুহলি আউট হন ৮২ রান করে। ৭৭ বলে ৮২ রানের ইনিংসে ছিল ২টি ছক্কার মার ও ৪টি চারের মার।

৫০ ওভার ব্যাটিং করে ভারত ৩৫২ রান করে। অস্ট্রেলিয়া এর লক্ষ্য দাড়ায় ৩৫৩ রানের।

বড় স্কোরের লক্ষ্য তারা করতে নেমে শুরুটা ভালই করছিল অস্ট্রেলিয়া। দলীয় ৬১ রানে অষ্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ রান আউটের কবলে পড়ে আউট হয়ে যান। ব্যাক্তিগত ৩৬ রান করে আউট হন এই ওপেনার।

এরপর ক্রিজে আসেন সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। ওয়ার্নার আর স্মিথ মিলে দলকে জয়ের পথে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু ব্যাক্তিগত ৫৬ রানে ওয়ার্নার আউট হয়ে গেলে দল চাপের মধ্যে পড়ে যায়। ওয়ার্নার আর স্মিথের পার্টনারশিপ ছিল ৭২ রানের।

এরপর স্মিথ উসমান খাজাকে নিয়ে দলকে আস্তে আস্তে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু ৬৯ রানের পার্টনারশিপ ভাঙ্গে খাজা আউট হওয়ার পর। খাজা ৩৯ বলে ৪২ রান করে আউট হবার পর স্মিথকে সঙ্গ দিতে আসেন ম্যাক্সওয়েল। কিন্তু এলবিডব্লিউয়ের ফাদে পড়ে ব্যাক্তিগত ৭০ বলে ৬৯ রান করে আউট হন তিনি। ৬৯ রান সাজিয়েছেন ৫টি চার ও ১টি ছয়ের মাধ্যমে।

এরপর ম্যাক্সওয়েল ২৮ রান করে আউট হবার পর ক্যারি খেলেন ৫৫ রানের ইনিংস। ৩৫ বলে ৫৫ করা ক্যারির রান দলকে টার্গেট টপকানোর জন্য যথেষ্ট ছিল না। তাই অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস শেষ হয় ৩১৬ রানে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে। ভারত ৩৬ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ভারতঃ ৩৫২/৫, ধাওয়ান ১১৭, কুহলি ৮২

স্টয়নিস ২/৬২

অস্ট্রেলিয়াঃ ৩১৬, স্মিথ ৬৯, ক্যারি ৫৫

ভুবেনশ্বর ৩/৫০

লেখকঃ সাকির আহমদ

আরও পড়ুনঃ বিশ্বকাপে টানা তৃতীয় হার দক্ষিন আফ্রিকার

দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে শেষ হাসি হাসল অষ্ট্রেলিয়া

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Your Rating:05

Thanks for submitting your comment!