এবারের বিশ্বকাপে দক্ষিন আফ্রিকার সময় একেবারেই ভাল যাচ্ছে না। টানা তিন ম্যাচ হেরে বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট এই দল প্রথম পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ভক্ত সমর্থকদের মনে এই আফসোস, যদি এই বিশ্বকাপে এবি ডি ভিলিয়ার্স থাকতেন। দক্ষিন আফ্রিকার অনেক সমর্থকরা দলের প্রয়োজনে তাকে যেভাবে হোক দলে ফিরানোর জন্য বোর্ডের কাছে আহ্বান করেছেন।

কিন্তু অবাক করা বিষয় হচ্ছে, খোদ ভিলিয়ার্সই বিশ্বকাপে খেলার জন্য স্কোয়াড ঘোষনার আগে অবসর ভেঙ্গে জাতীয় দলে ফেরার ইচ্ছা প্রকাশ করছিলেন। কিন্তু তাঁর এই প্রস্তাব বোর্ড প্রত্যাখ্যান করে দিয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফো এমনই এক বিস্ময়কর তথ্য প্রকাশ করেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার চূড়ান্ত বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণার আগে অবসর ভেঙে আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চেয়েছিলেন ডি ভিলিয়ার্স।

এজন্য বর্তমান প্রোটিয়া দলনেতা ফাফ ডু প্লেসি, কোচ ওটিস গিবসন ও নির্বাচক কমিটির প্রধান লিন্ডা জোন্ডির কাছে নিজের ইচ্ছার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দলের বাকিদের প্রতি অবিচার করা হবে ভেবে ডি ভিলিয়ার্সের প্রস্তাবে রাজি হননি তারা।

এবি ডি ভিলিয়ার্স এর ফেরার ইচ্ছা শুনে বেশ অবাকই হয়েছিলেন লিন্ডা। তিনি বলেন, ১৮ এপ্রিল আমরা যেদিন বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করি, সেদিন তার দলে ফেরার ইচ্ছা শুনে আমরা খুব অবাক হয়েছিলাম।

এবি অবসর নিয়ে শূন্যতা সৃষ্টি করেছিল, আমরা ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ ঘেঁটে সেটা পূরণ করেছি। এমন খেলোয়াড় আমাদের ছিল যারা অনেক পরিশ্রম করছে, বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা রাখে। নিয়ম অনুযায়ীই আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।

আমাদের স্কোয়াড চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছিল। আমাদের কোনো সুযোগই ছিল না তাকে দলের নেওয়ার। এবি নিঃসন্দেহে বিশ্বের সেরা একজন ক্রিকেটার। কিন্তু আমাদের নীতিতে তো অটুট থাকতে হবে।

লিন্ডা বলেন, ২০১৮ সালে এবিকে অবসর না নিতে আমি অনুরোধ করেছিলাম। আমি তাকে বলেছিলাম সে চাইলে সাময়িক বিরতি নিতে পারে, তবুও যেন বিশ্বকাপে অংশ নেয়।

কিন্তু অবসরের সিদ্ধান্তে এবি ডি ভিলিয়ার্স অটুট থাকায় বোর্ড তাকে নিয়ে বিশ্বকাপের চিন্তা বাদ দিতে হয়েছে। লিন্ডা বলেন, আমরা তাকে এটা পরিস্কার করে বলেছি যে তাকে বিশ্বকাপ দলের বিবেচনায় আসতে হলে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান সিরিজে খেলতে হত। সে তখন পাকিস্তান সুপার লিগ ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে নাম লেখায়। সে আমাদের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিল, জানিয়েছিল তার সিদ্ধান্তেই সে অটল আছে।

অবশ্য এ ব্যাপারে এবি ডি ভিলিয়ার্স কোন মন্তব্য করতে রাজি হন নি। তিনি জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে আমি আমার দলকে সমর্থন দেওয়াতেই মনযোগ রাখছি।

যে যাই বলুক, দক্ষিন আফ্রিকা বোর্ডের সাথে যে এবির কিছু বিষয় নিয়ে মনমালিন্য হয়েছে তা তাদের সাম্প্রতিক কথা বার্তায় স্পষ্ট। কয়েকদিন আগে এবি অবসর প্রসঙ্গে বলছিলেন, কেউ যেন তার খেলা নিয়ন্ত্রণ করতে চাইছে, যেটা তিনি কখনও চাননা।

তবুও ভক্ত অনুরাগীদের আশা, বোর্ড ও এবি এ বিষয়ে দ্রুত একটা সমাধান করে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে যুক্ত হয়ে দক্ষিন আফ্রিকাকে খাদের কিনারা থেকে তুলে ধরবেন।

Mustafa Shakir

আরও পড়ুনঃ বিশ্বকাপে টানা তৃতীয় হার দক্ষিন আফ্রিকার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Your Rating:05

Thanks for submitting your comment!