বাংলাদেশের সর্বত্র বিশ্বকাপ উন্মাদনা শুরু হয়েছে আগেই। সেই উন্মাদনা চূড়ান্ত রূপ নেবে আজ। বাংলাদেশ বিশ্বকাপের প্রথম মিশন শুরু করতে যাচ্ছে আজ। বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার দ্য ওভালে। একই ভেন্যুতে আজ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের শুরু হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে।

স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে দশটা এবং বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায় শুরু হবে বাংলাদেশ ও দক্ষিন আফ্রিকা ম্যাচ। দক্ষিন আফ্রিকার বিশ্বকাপে এটি দ্বিতীয় ম্যাচ। আর বাংলাদেশের বিশ্বকাপে এটি প্রথম ম্যাচ।

দুই দলেরই চোট সমস্যা আছে। দক্ষিন আফ্রিকা দলের অন্যতম ব্যাটসম্যান হাশিম আমলাকে বাংলাদেশের বিপক্ষে না খেলার সম্ভাবনাই দেখা যাচ্ছে।

বাংলাদেশ দলের দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের শুরুতে খেলা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিলেও পরে পাওয়া গেছে স্বস্তির খবর। আজকের ম্যাচে তিনি খেলতে পারবেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

শক্তিমত্তা ও পরিসংখ্যানের বিচারে দক্ষিণ আফ্রিকাই বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে। যদিও উদ্বোধনী ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে হেরে দক্ষিণ আফ্রিকা কিছুটা হলেও ‘ব্যাকফুটে’ রয়েছে। অন্যদিকে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জেতা বাংলাদেশ দল আছে অনেকটাই ফুরফুরে মেজাজে।

যদিও ম্যাচে দক্ষিন আফ্রিকাকে এগিয়ে রাখছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

তিনি বলেন,  ‘দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কোনো জায়গা থেকেই আমরা ফেভারিট নই। উইকেট বলেন বা অন্য সব জায়গায়ই তারা আমাদের চেয়ে এগিয়ে।’

‘এটাও সত্য, ম্যাচে আমরা নিজেদের সেরাটাই খেলব। আমাদের প্রস্তুতি বেশ ভালো।’

দক্ষিণ আফ্রিকা ফেভারিট হিসেবে বাংলাদেশ এই ম্যাচে ‘আন্ডারডগ’। তবে আন্ডারডগ হয়েই ম্যাচ জেতার প্রত্যাশা মাশরাফির। তিনি বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অবশ্যই আমরা জিততে চাইব। আশা করছি সেভাবেই খেলব। দলের খেলোয়াড়রাও প্রস্তুত নিজেদের সেরাটা দিতে।’

আইসিসির প্রকাশিত সবশেষ র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের থেকে এগিয়ে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশের থেকে চার ধাপ এগিয়ে প্রোটিয়াদের অবস্থান তৃতীয় স্থানে। অন্যদিকে বাংলাদেশের অবস্থান সাত নম্বরে। রেটিং পয়েন্টের ব্যবধানটিও নেহাত কম নয় দু’দলের। ৩য় স্থানে থাকা আফ্রিকার রেটিং পয়েন্ট যেখানে ১১৫, সেখানে টাইগারদের রেটিং পয়েন্ট ৯০ (আফ্রিকার থেকে ২৫ কম)।

বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ দলের অবস্থা নিয়ে দারুণ খুশি। তিনি বলেন, ‘আমরা বেশ ভালো দল। খেলোয়াড়রাও পর্যাপ্ত অনুশীলন করে ভালো অবস্থায় আছে। সর্বশেষ টুর্নামেন্টে ভালো করায় সবার আত্মবিশ্বাসই তুঙ্গে। আমরা এখন নামব, উপভোগ করব এবং ভালো ক্রিকেট খেলব।’

গত বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বৈরী কন্ডিশনেও ভালো করেছিল বাংলাদেশ। খেলেছিল কোয়াটার ফাইনালে। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ের পর দলের আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে। ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে সেমিফাইনালে খেলার সুখস্মৃতিও প্রেরণা জোগাচ্ছে।

সাকির আহমদ

আরও পড়ুনঃ আগেই ফুরিয়ে গেছে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচের টিকেট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Your Rating:05

Thanks for submitting your comment!